ম্যাককালাম যা করেছে, মাশরাফিও সেটাই করেছে

ক্রিকেট বিশ্বে ভদ্র ক্রিকেটার হিসেবে পরিচিতি কিউই অধিনায়ক কেন উইলিয়ামসন। বর্তমানে যার নেতৃত্বে দুর্দান্ত খেলছে নিউজিল্যান্ড। সবশেষ বিশ্বকাপে তার দারুণ পারফরম্যান্সে দলকে নিয়ে গেছেন ফাইনালে।

যদিও ক্রিকেটীয় আইনের মারপেঁচে স্বপ্নের বিশ্বকাপটা অধরাই রইলো নিউজিল্যান্ডের। তার নেতৃত্বের গুণ নিয়ে প্রশংসা করতে উঠে আসে টাইগার ক্রিকেটার সেরা অধিনায়ক মাশরাফির নেতৃত্ব!

বাংলাদেশ ক্রিকেটের অন্যতম সফল অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজা। সর্বশেষ ওয়ানডে সিরিজে নিজের নেতৃত্বের ইতি টানেন নড়াইল এক্সপ্রেস খ্যাত এই পেসার। বাংলাদেশ ক্রিকেটে তার অবদান ভুলে যাওয়ার নই! ভুলেননি কিউই অধিনায়ক উইলিয়ামসনও। তার নেতৃত্বের প্রসংশা করেছেন ওয়ানডে ক্রিকেটের সেরাদের মধ্যে ৭ নম্বর ব্যাটসম্যান।

মাশরাফির নেতৃত্বের পর ওয়ানডে অধিনায়ক এখন তামিম ইকবাল। একটা সময় মাশরাফির মতো নিউজিল্যান্ডের দারুণ নেতৃত্ব দিয়েছেন ব্রেন্ডন ম্যাককালাম। এরপর অধিনায়কের দায়িত্ব পান উইলিয়ামসন।

তামিমের আড্ডায় উঠে আসে দুই অধিনায়ককে নিয়ে। ম্যাককালামের অবসরের পর অধিনায়ক হিসেবে কী ধরনের চ্যালেঞ্জ সামলাতে হয়েছে, তা উইলিয়ামসনেট কাছে জানতে চান তামিম।

জবাবে উইলিয়ামসন বলেন, “তুমি মাশরাফি ও ব্রেন্ডনের কথা বলছিলে, দুজনই দীর্ঘ সময় ধরে দলকে দারুণভাবে নেতৃত্ব দিয়েছে। আমি ব্রেন্ডনের কাছ থেকে শেখার ভালো সুযোগ পেয়েছিলাম।

আমার কাছে মনে হয়েছে, ব্রেন্ডন অধিনায়কত্বের সঙ্গে খেলাও ছেড়েছে। এটা বড় চ্যালেঞ্জ ছিল। মাশরাফি তো এখনো খেলছে। এটা নিশ্চয়ই সাহায্য করবে। নতুন অধিনায়কের দায়িত্ব পাওয়ার পর সবার সাথে মানিয়ে নেওয়াটা একটা চ্যালেঞ্জ।

কেন আরও বলেন, “আরেকটা চ্যালেঞ্জ ছিল দল হিসেবে বিকশিত হওয়ার ধারাবাহিকতা ধরে রাখা। আমরা জানি ক্রিকেটারদের বয়স হয়, তাঁরা অবসর নেয়। আর অধিনায়ক হিসেবে যারা আছে দলে তাদের সঙ্গে মানিয়ে চলা শুরু করতে হয়।

পরিবর্তনকে স্বাদরে আমন্ত্রণ জানানো গুরুত্বপূর্ণ। অধিনায়ক হিসেবে সবার সঙ্গে সৎ থেকে কাজটা নিজের সামর্থ্যের সবটুকু দিয়ে করার চেষ্টা করতে হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *