যুবদল ও পুলিশের ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কসবায় যুবদলের নেতাকর্মীদের পুলিশের সাথে ধাওয়া পাল্টা-ধাওয়ার ঘটনা ঘটেছে। ধাওয়া পাল্টা-ধাওয়ায় অন্তত সাংবাদিকসহ ১৫ জন আ’হ’ত হয়েছে। ঘটনাস্থল থেকে একজনকে আটক করা হয়েছে। আজ সোমবার (২৭ সেপ্টেম্বর) সকাল সাড়ে ১০টার দিকে এ ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটেছে বলে জানা গেছে।

এর আগে, ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আখাউড়া উপজেলা ও পৌর যুবদলের কমিটি বাতিলের দাবিতে রবিবার ঝাড়ু হাতে বিক্ষো’ভ হয়েছে। অযোগ্য এবং অপরিচিত লোকদের দিয়ে আহ্বায়ক কমিটি গঠন করা হয় বলে এ সময় অভিযোগ করা হয়। বিক্ষোভের আগে সংবাদ সম্মেলন করে কমিটি বাতিলের দাবি জানানো হয়।

বিক্ষো’ভের সময় কুশপুত্তলিকাও দাহ করা হয়। জেলার কসবাতেও যুবদলের কমিটি বাতিলের দাবি উঠেছে। সম্প্রতি হওয়া বিক্ষোভে ঝাড়ু হাতে নামেন বিক্ষুব্ধরারা। পৌর এলাকার তারাগনে হওয়া সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন যুবদলের যুগ্ম আহ্বায়ক পদ প্রার্থী মামুন মিয়া।

লিখিত বক্তব্যে মামুন মিয়া অভিযোগ করেন, গত ১২ সেপ্টেম্বর সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে জানতে পারেন আখাউড়া উপজেলা যুবদল ও পৌর যুবদলের ৩১ সদস্যের আহ্বায়ক কমিটি ঘোষণা করেছে জেলা যুবদল। ওই কমিটিতে দীর্ঘ দিনের রাজপথের আন্দোলন সংগ্রামের ত্যাগী ও পরীক্ষিত নেতাদেরকে বাদ দিয়ে কমিটি গঠন করা হয়েছে।

বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের ব্যক্তিগত সহকারী পরিচয় দেওয়া আব্দুর রহমান সানির বড় ভাই কবির আহম্মেদ ভূঁইয়া প্রভাব খাটিয়ে জেলা কমিটিকে চাপ দিয়ে অযোগ্য অদক্ষদেরকে দিয়ে এসব কমিটি করেন।

যা দলের জন্য খুবই অমঙ্গলজনক। সংবাদ সম্মেলন থেকে আগামী সাত দিনের মধ্যে ঘোষিত উপজেলা ও পৌর যুবদলের আহবায়ক কমিটি বাতিল না করা হলে পরবর্তীতে কঠোর কর্মসূচি দেওয়া হবে বলে হুঁ’শিয়া’রি উচ্চারণ করা হয়।

সংবাদ সম্মেলনে আরো উপস্থিত ছিলেন যুবদলের আহ্বায়ক প্রার্থী মো. জাহাঙ্গীর আলম রানা, পৌর যুবদলের সাবেক আহ্বায়ক মোবাশ্বের আহসান, পৌর যুবদলের যুগ্ম আহ্বায়ক প্রার্থী এফ. এ. ফোরকান প্রমুখ। সংবাদ সম্মেলনে ত্যাগীদের বাদ দিয়ে কমিটি গঠনের অপতৎপরতা বন্ধে দলের উচ্চপর্যায়ের দৃষ্টি আকর্ষণ করা হয়।

Sharing is caring!

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.