যে কারণে ভারতের বিপক্ষে লাফিয়ে ছিলেন মিয়াঁদাদ (ভিডিও)

১৯৯২ সালের বিশ্বকাপে ভারতের বিপক্ষে জাভেদ মিয়াঁদাদের লাফানোর ঘটনা কখনও ভুলে যাওয়ার নয়। পাকিস্তানের তারকা ব্যাটসম্যান মিয়াঁদাদ যখন ব্যাট করছিলেন তখন ভারতীয় ক্রিকেটার কিরণ মোরে উইকেটের পেছনে দাঁড়িয়ে ছিলেন।জাভেদ মিয়াঁদাদকে রানআউট করার সুযোগ হাতছাড়া করে স্লেজিং করেন কিরণ মোরে।

তাই মোরের ওপর বিরক্ত হয়ে মাঠে লাফাতে থাকেন মিয়াঁদাদ। ২৯ বছর পর সেই ঘটনার স্মৃতিচারণ করে ভারতীয় সাবেক উইকেটকিপার কিরণ মোরে ওয়েস্ট ইন্ডিজের সাবেক তারকা পেস বোলার কোর্টলি অ্যামব্রোসের ইউটিউব চ্যানেলে জানান, জাভেদ আমার খুব ভালো বন্ধু। সেই ম্যাচটি ছিল ১৯৯২ সালে আমাদের প্রথম ম্যাচ।

গ্যালারি কানায় কানায় ভর্তি না থাকলেও দর্শকরা প্রচণ্ড আওয়াজ করছিল এবং আমরা খুবই চাপের মধ্যে ছিলাম। জয় ছাড়া আমাদের ভারতে ফিরে যাওয়াও কঠিন ছিল। তিনি জানান, আমরা যখন ব্যাট করতে গিয়েছিলাম, পাকিস্তানের ক্রিকেটাররা আমাদের সঙ্গে স্লেজিং করেছিল।

আমরা যখন পপিং ক্রিজে গিয়েছিলাম, মঈন খান, জাভেদ মিয়াঁদাদ, সেলিম মালিক ছিলেন। সবাই আমাদের ঘিরে ধরে ছিলেন। ইমরান খান নিজে থেকে কিছু একটা করতেন। আমরা মাঠে নেমে তাদের সেই স্লেজিং ফিরিয়ে দেওয়ার জন্য দলের নেতৃত্বে ছিলাম। আমি এটি শুরু করেছিলাম, তারপর শচীন টেন্ডুলকার, কপিল দেব, সবাই উত্তেজিত হয়েছিল।

আমরা সেই ম্যাচটি জিততে চেয়েছিলাম এবং আমি আমির সোহেলের সঙ্গে কথা বলতে শুরু করি, এরপর মাঠে নামে জাভেদ মিয়াঁদাদ। মোরে আরও জানান, জাভেদ মিয়াঁদাদের পিঠে চোট ছিল। আমি বোলারদের বলি ওর সামনে বল কর, ওকে শর্ট বল করবেন না। কারণ শর্ট বল করলে ও খুব সহজে কাট শট মারবে।

তাই শুনে সে বিরক্ত হয়ে উঠছিল। হতাশ হয়ে পড়ছিল। সে মিড অব এবং কভারে খেলার চেষ্টা করে ব্যর্থ হয়। কিরণ মোরে আরও বলেন, হিন্দিতে জাভেদ মিয়াঁদাদ আমাকে উদ্দেশ্য করে বলছিলেন, চিন্তা করবেন না আমরা এই ম্যাচটি সহজেই জিততে পারি। জবাবে আমি বলেছিলাম, জাহান্নামে যাও, আমরা এই ম্যাচটি জিতবই।

শচীন টেন্ডুলকার লেগ সাইডে আবেদন করেছিলেন। আমিও উটের আবেদন করি তখন জাভেদ আমাকে স্লেজিং করে। আমি ওকে চুপ থাকতে বললেও সে চুপ থাকেনি। এরপর একটা রান আউটের আবেদন হয়, আমি লাফিয়ে আবেদন করতে থাকি।

এরপর সে আমায় নকল করে লাফাতে থাকে। এরপর আমি উইকেটের পেছনে গিয়ে গ্লাভস দিয়ে নিজের মুখ ঢেকে রেখে ওকে কিছু কথা শোনাই। আম্পায়ার ডেভিড সেফার্ড মিয়াঁদাদকে শতর্ক করে বলেন এরপর এরকম করলে মাঠের বাইরে বের করে দেব।

ভিডিও দেখতে এখানে ক্লিক করুন

Sharing is caring!

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.