যে কারণে ৬ মিনিটেই বাতিল হয়ে গেল ব্রাজিল-আর্জেন্টিনা ম্যাচ

ব্রাজিল-আর্জেন্টিনার মধ্যকার বিশ্বকাপ বাছাইয়ের গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচটি স্থগিত ঘোষণা করা হয়েছে। কো’ভিড-১৯ প্রটোকল ভঙ্গকে দায়ী করে মাঠের মধ্যে ঢুকে যায় ব্রাজিলের স্বাস্থ্য সংস্থার প্রতিনিধিরা। উত্তেজনা কমাতে আর্জেন্টাইন ফুটবলারদের ড্রেসিংরুমে পাঠিয়ে দেন রেফারি।

দীর্ঘক্ষণ আলোচনার পরও কোন সমাধান না আসায় খেলাটি সাময়িকভাবে বন্ধ ঘোষণা করেন ম্যাচ পরিচালনাকারী রেফারি। পরে আনুষ্ঠানিকভাবে ম্যাচটি স্থগিত ঘোষণা করে দক্ষিন আমেরিকার ফুটবল নিয়ন্ত্রক সংস্থা কনমেবল। ব্রাজিলের স্বাস্থ্য সংস্থার প্রতিনিধিদের সাথে আর্জেন্টাইন শিবিরের কথার লড়াই শুরু হলে মাঠে উত্তেজনা কমাতে ম্যাচ পরিচালনাকারী রেফারি আর্জেন্টিনা দলকে ড্রেসিংরুমে পাঠিয়ে দেন।

নির্ধারিত সময়েই শুরু হয়েছিলো ব্রাজিল-আর্জেন্টিনার গুরুত্বপূর্ণ লড়াই। ম্যাচের তখন পঞ্চম মিনিটের খেলা চলছে। সাইড লাইনের পাশে অচেনা একজনকে দেখে আর্জেন্টিনার দুই খেলোয়াড় নিকোলাস ওতামেন্দি ও মার্কোস আকুনা জিজ্ঞেস করলেন তিনি কে? সঙ্গে সঙ্গে তাদের ঘিরে ধরলেন অনেকেই।

আর্জেন্টিনার ক্রীড়া পত্রিকা টিওয়াইসি জানিয়েছে, ম্যাচ অফিসিয়ালদের বাইরের উপস্থিত ব্যক্তিরা স্থানীয় স্বাস্থ্য কর্মকর্তা। ইংল্যান্ড থেকে আসা আর্জেন্টিনার চার খেলোয়াড়ের ব্যাপারে খোঁজ নিতে এসেছেন তারা। এ ঘটনার কিছুক্ষণ পর মাঠ ছেড়ে ড্রেসিং রুমে চলে যান আর্জেন্টিনার খেলোয়াড়রা।

জনপ্ৰিয় সংবাদ মাধ্যম রয়টার্স জানায়, কো’য়ারেন্টাইনের নিয়ম ভাঙার দায়ে আর্জেন্টিনার একাদশের তিন খেলোয়াড়ের খেলা নিয়ে আপত্তি জানায় স্বাস্থ্য কর্মকর্তারা। তাদের অভিযোগের পর সাও পাওলোর করিন্থিয়ান্স আরেনা ছেড়ে ড্রেসিং রুমে চলে যায় সফরকারীরা।

এই ঝামেলার মূলে রয়েছে ইংল্যান্ড থেকে আর্জেন্টিনার হয়ে খেলতে আসা ৪ ফুটবলার। যার মধ্যে তিনজন রয়েছেন আজকের ম্যাচের শুরুর একাদশে (লো সেলসো, এমি মার্টিনেজ এবং ক্রিস্টিয়ান রোমেরো)। আর্জেন্টিনা দলে থাকা এই চার ফুটবলার ইংল্যান্ড থেকে আর্জেন্টিনা হয়ে ভেনেজুয়েলা গিয়ে ব্রাজিল এসেছেন।

ব্রাজিলের সাও পাওলোর স্বাস্থ্য বিভাগ জানিয়েছে, ব্রাজিলের ক’রোনার নিয়মানুসারে ব্রিটেন, নর্দার্ন আয়ারল্যান্ড, দক্ষিণ আফ্রিকা ও ভারত থেকে অব্রাজিলিয়ানদের ব্রাজিলে সরাসরি প্রবেশের অনুমতি নেই। প্রবেশের ক্ষেত্রে আগেই সুনির্দিষ্ট কর্তৃপক্ষের কাছ থেকে বিশেষ অনুমতি নিতে হয়। নয়তো, ব্রাজিলে প্রবেশের পরই সম্পন্ন করতে হবে ১৪ দিনের বাধ্যতামূলক কো’য়ারেন্টাইন।

তবে আর্জেন্টিনার চার ফুটবলার যদি ব্রাজিলে প্রবেশের আগে আর্জেন্টিনা ও ভেনেজুয়েলায় ১৪ দিন কো’য়ারেন্টাইন সম্পন্ন করে আসতেন তবে আর কোনো ধরনের নিষেধাজ্ঞার শঙ্কায় তাদের পড়তে হতো না বলে জানিয়েছে স্বাস্থ্য বিভাগ। তাছাড়া এই ফুটবলারদের ব্যাপারে বিশেষ ছাড় দেয়ার জন্য আর্জেন্টাইন ফুটবল ফেডারেশনও ব্রাজিল ফেডারেশনকে কিছুই জানায়নি বলে জানা যায়।

Sharing is caring!