যৌ’ন উত্তেজক ওষুধ খেয়ে দৌলতদিয়ায়, বের হলেন লাশ হয়ে

নবাবপুরের ইলেকট্রনিক ব্যবসায়ী দেলোয়ার হোসেন বাবু (৫০) গিয়েছিলেন দৌলতদিয়া যৌনপল্লীতে। কিন্তু ভোর না হতেই লা’শ হলেন তিনি। জানা যায়, অতিরিক্ত যৌ’ন উত্তেজক ওষুধ সেবনের কারণে তার মৃ’ত্যু হয়েছে। শুক্রবার ভোর ৫টার দিকে রাজবাড়ীর গোয়ালন্দের দৌলতদিয়া যৌ’নপল্লীর যৌ’নকর্মী জ্যোৎস্নার ঘরে এ ঘটনা ঘটে।

দেলোয়ার হোসেন বাবু র বাড়ি ঢাকার ওয়ারী এলাকায়। তিনি পেশায় একজন ইলেকট্রনিক ব্যবসায়ী। বৃহস্পতিবার রাতে যৌ’নপল্লীতে আসেন। স্থানীয় এক দোকান থেকে যৌ’ন উত্তেজক ওষুধ কিনে সেবন করে পল্লীর আনোয়ারা বাড়িয়ালির ভাড়াটিয়া জ্যোৎস্না (২৫) নামে এক পতিতার ঘরে প্রবেশ করেন।

দেলোয়ার হোসেনের স্ত্রী জানান, তার স্বামী হার্টের রোগী ছিলেন। মাসখানেক আগে অসুস্থ হয়ে সিসিইউতে চার দিন ভর্তি ছিলেন। তবে তিনি মাঝে মধ্যেই ব্যবসায়িক কাজের কথা বলে রাতে বাড়িতে ফিরতেন না। পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, প্রেশার বেড়ে গিয়ে তিনি অসুস্থ হয়ে পড়েন।

ভোর ৫টার দিকে তার অবস্থা বেগতিক হয়ে পড়লে যৌনকর্মী জ্যোৎস্না আশপাশের লোকজনকে ডাকাডাকি করেন। ভোর ৫টা ৪০ মিনিটে তাকে গোয়ালন্দ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যান। তবে হাসপাতালে আনার আগেই তার মৃ’ত্যু হয়।

গোয়ালন্দ থানার এসআই দেওয়ান শামীম আহমেদ জানান, আমরা হাসপাতালে গিয়ে মৃত ব্যক্তির পকেট থেকে তার ব্যক্তিগত মোবাইল ফোন উদ্ধার করে পরিবারকে খবর দিই। শুক্রবার দুপুর ১২টার দিকে মৃ’তের স্ত্রী, দুই ছেলেমেয়ে ও অন্যান্য স্বজন থানায় আসেন।

Sharing is caring!