রাম মন্দির নির্মাণের টাকা নিয়ে জালিয়াতি

ভারতের উত্তরপ্রদেশের অযোধ্যায় মন্দির নির্মাণে দায়িত্বপ্রাপ্ত ট্রাস্টের ব্যাংক হিসাব থেকে জালিয়াতির মাধ্যমে ছয় লাখ রুপি হাতিয়ে নেওয়া হয়েছে। পর পর দুটি চেকের মাধ্যমে এই অর্থ তুলে নেওয়ার পর তৃতীয় আরেকটি চেক দিয়ে টাকা তুলতে গেলে এই জালিয়াতি ধরা পড়ে। ভারতীয় গণমাধ্যম এনডিটিভি জানায়, এই ঘটনায় মামলা দায়ের করেছেন ট্রাস্টের সেক্রেটারি চম্পত রায়।

তবে এই ঘটনায় এখনও কাউকে গ্রেফতার করা যায়নি। বৃহস্পতিবার অযোধ্যা সার্কেলের পুলিশ কর্মকর্তা রাজেশ কুমার রায় জানান, গতকাল শ্রী রাম জন্মভূমি তীর্থ ক্ষেত্র ট্রাস্টের সেক্রেটারি চম্পত রায় ট্রাস্টের ব্যাংক হিসাব থেকে ছয় লাখ রুপি তুলে নেওয়ার ঘটনায় মামলা দায়ের করেছেন।

পাঞ্জাব ন্যাশনাল ব্যাংকের লখনৌ শাখা থেকে আড়াই লাখ ও সাড়ে তিন লাখ রুপির দুটি আলাদা জাল চেক ব্যবহার করে এই অর্থ তুলে নেওয়া হয় বলে জানান তিনি। তবে পরে আরেকটি চেকের মাধ্যমে বারোদা ব্যাংক থেকে নয় লাখ ৮৬ হাজার রুপি তুলতে গেলে ৯ সেপ্টেম্বর ব্যাংক কর্তৃপক্ষ তা যাচাইয়ের জন্য চম্পত রায়কে জানান।

চম্পত রায় চেকবই খুঁজে দেখতে পান ওই একই নম্বরের চেক এখনও সেখানে থেকে গেছে। ফলে তিনি বুধবার রাতে চেক জালিয়াতির মামলা দায়েরের সিদ্ধান্ত নেন।
মামলাটি তদন্ত করা হচ্ছে জানিয়ে পুলিশ কর্মকর্তা রাজেশ কুমার রায় বলেন শিগগিরই অপরাধীদের গ্রেফতার সম্ভব হবে বলে ধারণা করা হচ্ছে। গত ২০ আগস্ট ভূমি পূজার মধ্য দিয়ে রাম মন্দির নির্মাণ কাজ শুরু হয়েছে। বর্তমানে প্রকৌশলীরা নির্মাণস্থলের মাটি পরীক্ষার কাজ করছেন।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*