রাহুলকে তৈরি করার পরামর্শ গাভাস্কারের

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের পর ক্রিকেটের এই সংক্ষিপ্ত সংস্করণের অধিনায়কত্ব ছাড়ছেন বিরাট কোহলি। ভারতের পরবর্তী টি-টোয়েন্টি অধিনায়ক হওয়ার দৌড়ে সবচেয়ে এগিয়ে রয়েছেন অভিজ্ঞ ওপেনার রোহিত শর্মা। তবে সুনীল গাভাস্কারের মতে, ভবিষ্যতের অধিনায়ক হিসেবে লোকেশ রাহুলকে তৈরি করা উচিত ভারতের।

গত মৌসুম থেকে ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগে (আইপিএলে) পাঞ্জাব কিংসকে নেতৃত্ব দিয়ে আসছেন রাহুল। মারকাটারি এই টুর্নামেন্টে দলকে নেতৃত্ব দেওয়ার পাশাপাশি ব্যাট হাতেও বেশ ভালো পারফর্ম করেন এই ডানহাতি ব্যাটসম্যান। করোনার কারণে এবারের আইপিএল স্থগিত হয়ে যাওয়ার আগে আসরের সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহকও ছিলেন তিনি।

এ ছাড়া সদ্য শেষ হওয়া ইংল্যান্ডের বিপক্ষে পাঁচ ম্যাচের টেস্ট সিরিজেও ভালো পারফর্ম করেছেন রাহুল। আট ইনিংসে একটি করে সেঞ্চুরি ও হাফ সেঞ্চুরিতে ৩১৫ রান সংগ্রহ করেছিলেন তিনি। ভবিষ্যতের কথা চিন্তুা করে রাহুলকে এখন থেকেই সহকারী অধিনায়ক হিসেবে করার পরামর্শ দেন তিনি।

এ প্রসঙ্গে ভারতের কিংবদন্তী এই ক্রিকেটার বলেন, ‘এটা ভালো বিষয় যে বিসিসিআই সামনের দিকে তাকিয়ে আছে। ভবিষ্যতের চিন্তা করা গুরুত্বপূর্ণ। ভারত যদি নতুন অধিনায়ক তৈরিতে চোখ রাখে তাহলে লোকেশ রাহুলের দিকে দৃষ্টি রাখতে পারে। সে দারুণ পারফর্ম করে। এমনকি ইংল্যান্ডেও তার ব্যাটিং খুবই দুর্দান্ত ছিল। সে আইপিএলে ভালো পারফর্মের পাশাপাশি ৫০ ওভারের আন্তর্জাতিক ক্রিকেটেও ভালো খেলে। তাকে সহকারী অধিনায়কও বানানো যায়।’

২০১৮ সালের আইপিএলে ১৫৮.৪১ স্ট্রাইক রেট ও ৫৪.৯২ গড়ে ৬৫৯ রান করে তৃতীয় সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক ছিলেন রাহুল। পরবর্তী আসরে ব্যাট হাতে ৫৩.৯০ গড়ে ৫৯৩ রান সংগ্রহ করেছিলেন রাহুল। অধিনায়কত্ব করার চাপ সামলে ব্যাট ভালো পারফর্ম করার সামর্থ্য থাকায় রাহুলকে প্রশংসায় ভাসান গাভাস্কার।

তাই ভারতের পরবর্তী অধিনায়ক হিসেবে রাহুলকে বিবেচনা করা হওয়া উচিত কি না সে বিষয়ে সকলের কাছে প্রশ্ন রেখে গাভাস্কার বলেন, ‘তিনি আইপিএলে অত্যন্ত চিত্তাকর্ষক নেতৃত্বের গুণাবলী দেখিয়েছেন। অধিনায়কত্বের বোঝা তার ব্যাটিংকে প্রভাবিত করতে দেয়নি। তার নাম কি বিবেচনা করা যেতে পারে?’

Sharing is caring!

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.