রিয়াদ ভাই ফোন করে বলল ‘জলদি আয়’ : তামিম

এই প্রথমবার বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগে (বিপিএল) একই দলে দেখা যাবে মাশরাফি বিন মর্তুজা, মাহমুদ উল্লাহ রিয়াদ ও তামিম ইকবালকে। তিনজনই জাতীয় দলের সাবেক ও বর্তমান অধিনায়ক। ড্রাফটের আগেই সরাসরি সাইনিংয়ে ‘এ’ শ্রেণির মাহমুদ উল্লাহকে দলে নেয় বিসিবির মালিকানাধীন ঢাকা। বাকি দুজনকে আজ সোমবার প্লেয়ার্স ড্রাফটের মাধ্যমে দলে নেয়। তিনজনের মধ্যে এক বছরেরও বেশি সময় প্রতিদ্বন্দ্বিতামূলক ক্রিকেটের বাইরে আছেন মাশরাফি।

বাংলাদেশের বিখ্যাত পঞ্চপাণ্ডবের তিন পাণ্ডব একসঙ্গে খেলবেন- এটা নিঃসন্দেহে দেখার মতো দৃশ্য। প্লেয়ার্স ড্রাফট শেষে টি-টোয়েন্টি অধিনায়ক মাহমুদ উল্লাহ বলছেন, ‘সব সময়ই বিশ্বাস ছিল আবার একসঙ্গে খেলতে পারব। আলহামদুলিল্লাহ আবার একসঙ্গে খেলতে পারছি। তামিমও আমাদের সঙ্গে আছে।

অভিজ্ঞ খেলোয়াড়রা আমাদের দলে বেশি তো, আমি আশা করি, মাঠে যদি এটা কাজে লাগাতে পারি, আমাদের ভালো ফল করার সম্ভাবনা আছে, সেটা বিশ্বাস করি।’ অন্যদিকে ওয়ানডে অধিনায়ক তামিম ইকবাল সাংবাদিকদের বলেন, তিনি মাহমুদউল্লাহর কল পাওয়ার পরই ড্রাফটে গেছেন। যদিও টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের আগে থেকে দুজনের সম্পর্কের তিক্ততা নিয়ে গুঞ্জন ছড়ায়।

তামিমের ভাষায়, ‘দেখেন, একটা বিষয় শেয়ার করি, আমরা তো মাত্র এক রাতের মতো সময় পেলাম। তো আজ সকালেই রিয়াদ ভাই (মাহমুদ উল্লাহ) আমাকে কল করে বলল, তুই একটু জলদি আয়। তো এখানে আমি আর কী বলব বা কিভাবে বোঝাব আমাদের সম্পর্কের ব্যাপারে?’

তিনজন এক দলে খেলার সুযোগ পেয়ে উচ্ছ্বসিত তামিম আরো বলেন, ‘এ রকম তো প্রত্যাশা করা যায় না আসলে। সাধারণত যেটা হয়, আমরা তিনজন তিন দলে থাকি। এবার সৌভাগ্যবশত হয়েছে, খুব খুশি। আমার মনে হয়, ক্রিকেটে জেতা-হারাটা তো সব না। ক্রিকেটে উপভোগ করাটা খুব গুরুত্বপূর্ণ। যদি উপভোগ করার ব্যাপার না থাকে, তাহলে বিশ্বে কেউই খেলবে না। আমরা তিনজন একসঙ্গে থাকলে এমনিতেই উপভোগ করব।’

Sharing is caring!

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.