রেলের ক্লিনারের বেতন মাসে ৪ লাখ ২০ হাজার।

রেলওয়ের কারিগরী প্রকল্পে ক্লিনারের মাসিক বেতন ধরা হয়েছে চার লাখ ২০ হাজার টাকা। রেল মন্ত্রণালয় থেকে পরিকল্পনা কমিশনে পাঠানো প্রকল্প প্রস্তাবনায় এমনই অবিশ্বাস্য বেতনের কথাই বলা হয়েছে।

রেলের উন্নয়নে এ খাতকে ঢেলে সাজাতে বিভিন্ন সময়ে নানামুখী উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। এরই ধারাবাহিকতায় ২৫৬ কোটি টাকার কারিগরি সহায়তা প্রকল্প বরাদ্দ করেছে রেল মন্ত্রণালয়।

এ প্রকল্পের আওতায় ১১টি উপ-প্রকল্প বাস্তবায়ন করার প্রস্তাব করা হয়েছে। লোকসানে জর্জরিত সেবাখাত রেলওয়ের কারিগরী প্রকল্পে এমনই অকল্পনীয় বেতন ধরা হয়েছে, যা সম্প্রতি প্রকল্পটি অনুমোদনের জন্য পরিকল্পনা কমিশনে পাঠানো হয়।

প্রকল্প মূল্যায়ন কমিটি বেতন ভাতা নির্ধারণে বড় ধরনের অনিয়ম পেয়েছে বলে জানা গেছে। পরিকল্পনা কমিশনের কার্যপত্রে দেখা যায়, প্রকল্পে ক্লিনারের বেতন ধরা হয় চার লাখ ২০ টাকা, অফিস সহায়কের বেতন প্রতিমাসে ৮৪ হাজার টাকা, বিদেশি পরামশর্কের বেতন গড়ে ১৬ থেকে ২৫ লাখ টাকা ধরা হয়েছে।

এমন ভুতুড়ে প্রস্তাবনা গ্রহণযোগ্য নয় বলে জানিয়েছে পরিকল্পনা কমিশন। পরে তা ফেরত পাঠানো হয় রেল মন্ত্রণালয়ে।এদিকে রেল মন্ত্রণালয় এ বেতন নির্ধারণের বিষয়টিকে ‘নিছক ভুল’ বলে দাবি করছে। তবে এটি কি ভুল ছিল নাকি অন্য কোনো উদ্দেশ্য ছিল তা নিয়ে যথেষ্ট সংশয় রয়েছে। যাতায়াত ব্যবস্থার অন্যতম এ মাধ্যম রেল খাতের উন্নয়নে এসব অনিয়মকেই সবচেয়ে বড় বাধা বলে মনে করেন বিশেষজ্ঞরা।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*