রোনালদোদের দায়িত্ব নিয়ে বিপদে র‌্যাগনিক

ফর্মে ফেরার লক্ষ্য নিয়ে ওলে গুনার সুশারকে বরখাস্ত করার পর রালফ র‌্যাগনিককে নিয়োগ দেয় ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড। নতুন পরিবেশে খাপ খাইয়ে নেওয়ার বাড়তি চেষ্টায় আছেন এই জার্মান কোচ। তবে রেড ডেভিলদের দায়িত্ব নিয়ে ক্লাবের অভ্যন্তরীণ কিছু সমস্যার কারণে বিপদে পড়েছেন র‌্যাগনিক।

র‌্যাগনিকের সবচেয়ে বড় সমস্যাটা হল ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদোকে নিয়ে। সতীর্থদের সাথে রসায়নের অনেক অভাব ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের সবচেয়ে বড় তারকার। ইংলিশ প্রচারমাধ্যম ডেইলি মেইলের দাবি, সাবেক রিয়াল মাদ্রিদ ফুটবলারের সাথে সম্পর্কটা মোটেও ভালো যাচ্ছে না ফরোয়ার্ড ম্যাসন গ্রিনউডের।

রোনালদোর সমস্যাটা সেখানেই সীমাবদ্ধ নেই। স্কাই স্পোর্টসের জনপ্রিয় সাংবাদিক গ্যারি নেভিল জানিয়েছেন, অধিনায়ক হ্যারি মাইগুইরের সাথেও রোনালদোর বনিবনা হচ্ছে না। কেউ কারও ছায়া পর্যন্ত দেখতে পারছেন না। সব মিলিয়ে এই দুইজনের মধ্যে নেতৃত্ব নিয়ে সংঘর্ষটা নাকি এখন চরমে পৌঁছেছে।

ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগে গত ২৮ ডিসেম্বর নিউক্যাসল ইউনাইটেডের সাথে ১-১ গোলে ড্র করেছে ম্যানইউ। সেন্ট জেমস পার্কে ম্যাচের সপ্তম মিনিটে অ্যালান সেন্ট ম্যাক্সিমিন স্বাগতিকদের এগিয়ে নেন। অনেক চেষ্টার পর ৭১ মিনিটে এডিনসন কাভানির গোলে ম্যাচে ফিরে অতিথিরা। সে ড্রয়ের পর ড্রেসিংরুমে তরুণদের সাথে বাজে ব্যবহার করেছেন রোনালদো, ব্রুনো ফার্নান্দেজরা, দাবি গ্যারি নেভিলের। যার রেশ এখনও বিদ্যমান।

আক্রমণাত্মক হওয়ায় র‌্যাগনিকের পছন্দ ৪-২-২-২ ফরমেশন। এটার সাথে মানিয়ে নিতে কষ্ট হচ্ছে ম্যানইউ’র বেশ কয়েকজন ফুটবলারের। এমনকি জার্মান কোচের অনুশীলনেও নাকি অনেক ঘাম ঝরাতে হচ্ছে ইংল্যান্ডের প্রথম সারির দলটির বেশ কয়েকজন তারকার। জানা গেছে, এই বিষয়ে নতুন কোচের প্রতি অনেকেই অসন্তোষ প্রকাশ করেছেন।

র‌্যাগনিকের কোচিং দক্ষতা নিয়ে নতুন করে বলার কিছু নেই। আক্রমণাত্মক কোচিং দিয়ে নিজেকে আগেই প্রমাণ করেছেন জার্মান গডফাদার। তার অধীনেই নিজেদের ইতিহাসে প্রথমবারের মতো ২০১৯-২০ মৌসুমে চ্যাম্পিয়নস লিগের শেষ চারে খেলেছে জার্মান বুন্দেসলিগার ক্লাব আরবি লাইপজিগ। সুদিন এনে দিয়েছিলেন ভিএফবি স্টুটগার্টেও। এবার দেখা যাক, একগাদা সমস্যা নিয়ে ম্যানইউকে ঘুরে দাঁড়াতে কতটা সহায়তা করতে পারেন তিনি।

Sharing is caring!

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.