লাদাখ থেকে সেনা সরাতে সম্মত ভারত-চীন

লাদাখের সীমান্ত এলাকা থেকে সেনা সরাতে সম্মত হয়েছে ভারত ও চীন। শুক্রবার দেশ দুটির পররাষ্ট্রমন্ত্রী এক যৌথ বিবৃতিতে এ কথা জানিয়েছে। বিতর্কিত ওই এলাকায় এক মাস ধরে অচলাবস্থার পর রাশিয়ার মধ্যস্থতায় এই সমঝোতায় পৌঁছেছে নয়াদিল্লি ও বেইজিং।

মস্কোয় সাংহাই কোঅপারেশন অর্গানাইজেশনের পররাষ্ট্রমন্ত্রীদের এক বৈঠকের ফাঁকে এই ঐক্যমত্যে পৌঁছান চীনের রাষ্ট্রীয় উপদেষ্টা এবং পররাষ্ট্রমন্ত্রী ওয়াং ই এবং ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী এস জয়শঙ্কর। সাম্প্রতিক মাসগুলোতে বেশ উত্তপ্ত হয়ে উঠেছে এই বিতর্কিত সীমান্ত।

বিবৃতিতে বলা হয়, সীমান্ত এলাকার বর্তমান পরিস্থিতি উভয়পক্ষের স্বার্থের জন্য ক্ষতিকর বলে একমত হয়েছেন দুই পররাষ্ট্রমন্ত্রী। এজন্য উভয়পক্ষের মধ্যে আলোচনা চালিয়ে যাওয়া, দ্রুত সেনা সরিয়ে নেয়া, যথাযথ দূরত্ব বজায় রাখা ও উত্তেজনা কমানোর ব্যাপারে তারা রাজি হয়েছেন।

এদিকে চীনের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এক পৃথক বিবৃতিতে জানিয়েছে, তারা ভারতের সঙ্গে কূটনৈতিক ও সামরিক চ্যানেলের মাধ্যমে যোগাযোগ রক্ষা করে যাবে। এছাড়া বিতর্কিত সীমান্ত এলাকায় ‘শান্তি প্রতিষ্ঠা ও স্থিতিশীলতা’ প্রতিষ্ঠার ব্যাপারে তারা প্রতিশ্রুতিবদ্ধ।

মস্কোর ওই বৈঠকের কথা উল্লেখ করে সেখানে বলা হয়, উভয়পক্ষের প্রতিশ্রুতি লঙ্ঘিত হয় এমন উস্কানিমূলক কর্মকাণ্ড যেমন গুলি চালানো এবং অন্যান্য বিপজ্জনক কর্মকাণ্ড তাৎক্ষণিক বিরত থাকতে জয়শঙ্করকে বলেছেন ওয়াং। ওয়াং আরও বলেন, সীমান্তে অনুপ্রবেশকারী সব কর্মকর্তা ও অস্ত্রশস্ত্র সরিয়ে নিতে হবে এবং পরিস্থিতি শান্ত করতে উভয়পক্ষের ফ্রন্টিয়ার ট্রুপসকে ‘অবশ্য সরে যেতে’ হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *