সভাপতি প্রার্থী শাকিব খান, সম্পাদক পদে জায়েদ, পরীমণি অনিশ্চিত!

২০১৯ সালের ২৫ অক্টোবর হয়েছে বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির দ্বিবার্ষিক নির্বাচন। সে হিসেবে আগামী মাসেই মেয়াদ পূর্ণ করবে চলমান কমিটি। হবে নতুন নির্বাচন। আর এটিকে ঘিরে এখন বিএফডিসি পাড়া সরগরম। বেশ কয়েকটি সূত্র বাংলা ট্রিবিউনকে জানাচ্ছে, এবারের নির্বাচন হবে বেশ কঠিন।

ফাঁকা মাঠে গোল করার সুযোগ এবার আর থাকছে না। কারণ, নির্বাচনী ময়দানে ফিরছেন সাবেক সভাপতি ঢালিউডের শীর্ষ নায়ক শাকিব খান। তিনি গঠন করতে চলেছেন নতুন প্যানেল। যেখানে তিনি সভাপতি ও চিত্রনায়িকা নিপুণ হবেন সাধারণ সম্পাদক। অপর দিকে বর্তমান সভাপতি মিশা সওদাগর নির্বাচন করছেন না।

তাই সভাপতি পদে মনোয়ার হোসেন ডিপজলকে নিয়ে সাধারণ সম্পাদক হিসেবে নতুন প্যানেল তৈরি করতে চান জায়েদ খান। তিনি টানা দুই দফা একই পদে আছেন। থাকতে চান এবারও। খোঁজ নিয়ে জানা যায়, বর্তমান মিশা-জায়েদ প্যানেলটি আগের মতো অনুকূল পরিবেশে নেই।

একে তো তাদের শক্ত প্রতিদ্বন্দ্বী হিসেবে সামনে আসছেন দেশের চলচ্চিত্রের সবচেয়ে জনপ্রিয় তারকা শাকিব খান, অন্যদিকে চলতি বছর পরীমণিসহ নানা বিতর্কে তারা সমালোচিত হয়েছেন। আরও আছে সদস্যপদ বাতিল, জ্যেষ্ঠ শিল্পীদের নাম ব্যবহার করে নানা ধরনের সুবিধা হাসিল প্রভৃতি।

তবে অনেক শিল্পীর দুঃসময়ে পাশে থাকায় প্রশংসিত হয়েছিলেন তারা। ডিপজল-জায়েদ খানের এবারের প্যানেলে থাকবেন রুবেল, আলেকজান্ডার বো, জয় চৌধুরীসহ বর্তমান কমিটির বেশ কয়েকজন। অন্যদিকে, শাকিব খান তিনবারের সভাপতি পদে বিজয়ী। এর আগে ২০১১ থেকে ২০১৭ সাল পর্যন্ত টানা তিনবার দায়িত্ব পালন করেছেন।

শাকিব-নিপুণের প্যানেল থেকে দেখা মিলতে পারে মৌসুমী, ফেরদৌস, পূর্ণিমা, নিরবসহ নানা প্রজন্মের আরও কয়েকজন তারকার। সম্ভাব্য এই প্যানেলের বিষয়টি জানতে চাইলে নিপুণ বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘এখনও কিছু চূড়ান্ত নয়। একটু সময় লাগবে। তবে সামনের মাসে (অক্টোবরে) পুরো বিষয়টি জানাতে পারবো। সবার সহযোগিতা ও সমর্থন নিয়েই সামনে যেতে চাই।’

এদিকে, নির্বাচনে নাম শোনা যাচ্ছে পরীমণিরও! তবে মামলা ও নানা বিতর্কের কারণে তার নির্বাচন করার সম্ভাবনা খুবই কম। আর নির্বাচন করলে পরীমণিকে দেখা যাবে শাকিব খানের প্যানেলে, সে বিষয়ে সন্দেহ নেই কারও। যদিও এই বিষয়ে পরীমণি বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘ক্ষমা করবেন প্লিজ। আমি আপাতত অন্য কিছু নিয়ে ভাবতে পারছি না।’

Sharing is caring!