সাকিবের বোলিং নৈপুণ্যে সহজ লক্ষ্য পেল দল

ঢাকা প্রিমিয়ার লিগে দারুণ বোলিং করে শাইনপুকুর ক্রিকেট ক্লাবকে মাত্র ১২৬ রানে আটকে দিয়েছে মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাব লিমিটেড। দুইটি করে উইকেট নিয়েছেন সাকিব আল হাসান ও ইয়াসিন আরাফাত। বিকেএসপির চার নং মাঠে টস হেরে প্রথমে ব্যাট করতে নামে শাইনপুকুর ক্রিকেট ক্লাব।

শুরু থেকেই শাইনপুকুরকে চেপে ধরে মোহামেডান। বল হাতে সূচনা করতে এসে প্রথম ওভারে মাত্র এক রান দেন সাকিব আল হাসান। এরপর বাকি বোলাররাও শাইনপুকুরের দুই ওপেনার তানজীদ হাসান তামিম এবং সাব্বির হোসেনকে আটকে রাখতে সফল হন। পাওয়ারপ্লেতে মাত্র ২৬ রান নেয় শাইনপুকুর।

সপ্তম ওভারে ওপেনিং জুটি ভাঙেন আসিফ হাসান। এ বামহাতি স্পিনারের বলে পুল করতে গিয়ে ক্যাচ দেন সাব্বির। ২০ বলে ১০ রানের মন্থর ইনিংস খেলেন তিনি। এরপর দশম ওভারে এসে জোড়া আঘাত হানেন পেসার ইয়াসিন আরাফাত। থিতু হওয়া তানজীদকে ফেরান ভয়ঙ্কর হয়ে ওঠার আগেই।

এগিয়ে এসে খেলতে গিয়ে বলের লাইন মিস করলে বল অফ স্টাম্পে আঘাত হানে। ঐ ওভারে তৌহিদ হৃদয়কেও বোল্ড করেন ইয়াসিন। দলের রানের গতি বাড়ানোর চেষ্টা করেন মাহিদুল ইসলাম অঙ্কন। তাকে সঙ্গ দেন রবিউল ইনিংসের ১৩ তম ওভারে আসিফের বলে মাহিদুল মারেন দুই ছক্কা।

মাহিদুল-রবিউলের ৩৪ রানের জুটি ভাঙেন সাকিব। সাকিবকে রিভার্স সুইপ করতে গিয়ে পারভেজ ইমনের হাতে ধরা পড়েন রবিউল। ২১ বলে ২৫ রান করেন তিনি। তার এক বল পরেই নতুন ব্যাটসম্যান মৃত্যুঞ্জয় চৌধুরীকে বোল্ড করেন সাকিব।

থিতু হওয়া মাহিদুলও পারেননি শেষ পর্যন্ত টিকে থাকতে। ১৭ তম ওভারে আবু জায়েদের বলে ক্যাচ তুলে দেন শুভাগত হোমের হাতে। শেষে সাজ্জাদুল হক আর সুমন খান যোগ করেন ৩৩ রান। সাকিবের করা ১৯ তম ওভারেই আসে ১৫ রান। সাজ্জাদ ১৮ বলে ১২ রান করে ও সুমন ১১ বলে ২৩ রান করে অপরাজিত থাকেন।

Sharing is caring!

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.