সাকিব ও মুশফিককে নিয়ে অবিশ্বাস্য সিদ্ধান্ত বিসিবির

Bangladesh's Shakib Al Hasan (L) is watched by teammate Mushfiqur Rahim as he acknowledges the crowd while celebrating after scoring a half-century (50 runs) during the 2019 Cricket World Cup group stage match between South Africa and Bangladesh at The Oval in London on June 2, 2019. (Photo by Ian KINGTON / AFP) / RESTRICTED TO EDITORIAL USE

এ বছরের জানুয়ারীতে ওয়েস্ট ইন্ডিজ সিরিজ দিয়ে আবারো জাতীয় দলে প্রত্যাবর্তন ঘটেছিল ডানহাতি পেসার তাসকিন আহমেদের। এরপর নিউজিল্যান্ড সিরিজের ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টি দুই ফরম্যাটেই দারুণ বল করেছিলেন তিনি। একই ধারাবাহিকতা বজায় রেখেছিলেন শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে টেস্ট এবং ওয়ানডেতে সিরিজে।

২০২১ সালের জন্য বাংলাদেশের ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) কেন্দ্রীয় চুক্তিতে তাই আবারো অন্তুভূক্ত হতে যাচ্ছেন তাসকিন। তার সঙ্গে কেন্দ্রীয় চুক্তিতে ফিরছেন দেশ সেরা অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান। ২০১৯ সালে ইন্টারন্যাশনাল ক্রিকেট কাউন্সিলের (আইসিসি) দেয়া এক বছরের নিষেধাজ্ঞার কারণে চুক্তি থেকে বাদ পড়েছিল সাকিবের নাম।

তাই এবার তিন ফরম্যাটের চুক্তিতে ফিরছেন তিনি। আর ইনজুরি ও বাজে ফর্মের কারণে তাসকিন গত ৩ বছর ধরেই বিসিবির কেন্দ্রীয় চুক্তির বাইরে। যদিও তার ওয়ার্ক লোড ম্যানেজমেন্টের কথা চিন্তা করে শুধু ওয়ানডে এবং টেস্টের জন্য চুক্তিতে অন্তভূক্ত হতে পারেন।

এমনটাই জানিয়েছে ক্রিকেট ভিত্তিক ওয়েবসাইট ‘ক্রিকবাজ’। তারা জানিয়েছে, এ বছর ১৮ জন ক্রিকেটার বিসিবির কেন্দ্রিয় চুক্তিতে অন্তভূক্ত হতে যাচ্ছেন। আগামী বোর্ড সভায় এ ব্যাপারে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেয়া হতে পারে।

যদিও ২০২০ সালের চুক্তিতে ১৭ জন ক্রিকেটার ছিলেন এবার ১ জন বেড়ে তা ১৮ জন করা হয়েছে। বিসিবির প্রধান নির্বাহী নিজাম উদ্দিন চৌধুরি ক্রিকবাজকে বলেন, ‘বোর্ডের শেষ সভায় আমরা সিদ্ধান্ত নিয়েছিলাম যে আমাদের পরবর্তী বোর্ড সভায় কতজন ক্রিকেটার কেন্দ্রীয় চুক্তিতে অংশ নিতে চলেছেন সে সম্পর্কে আমরা একটি চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেব।’

তিনি আরো বলেন, আপনারা সবাই জানেন যে, আমরা মূলত জানুয়ারি-ডিসেম্বরের সময়কালের জন্য চুক্তিটি চূড়ান্ত করি। তবে আমরা এখনই এটি করছি কারণ আমরা গত বছর করোনভাইরাস প্রাদুর্ভাবের জন্য খুব বেশি আন্তর্জাতিক ক্রিকেট খেলিনি।

তিনি আরো যোগ করে বলেন, ‘সুতরাং বাছাই প্যানেল এবং ক্রিকেট অপারেশন কমিটি সাম্প্রতিক অতীতের পারফরম্যান্সকে বিবেচনায় রেখে নামগুলি প্রস্তুত করছে। আমরা যদি পরবর্তী বোর্ডের সভায় নামগুলি পাই তবে আমরা পরবর্তী সিদ্ধান্ত নেওয়ার বিষয়টি বিবেচনা করব।

ওয়ার্ক লোড ম্যানেজমেন্টের কথা চিন্তা করে তাসকিনকে শুধু টেস্ট কিংবা ওয়ানডের চুক্তিতে রাখার ব্যাপারে ক্রিকবাজের সঙ্গে কথা বলেছেন বিসিবির গেম ডেভোলপমেন্ট প্রধান খালেদ মাহমুদ সুজন। যিনি গত দুই সিরিজে বাংলাদেশ দলের টিম লিডার হিসেবে নিয়ুক্ত ছিলেন।

তিনি ক্রিকবাজকে বলেন, ‘দেখুন আমাদের বুঝতে হবে যে আমরা তাসকিনকে ওভারলোড চাপিতে দিতে পারি না কারণ এতে হিতে বিপরীত হতে পারে। শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে টেস্ট সিরিজে তাসকিন প্রচুর ওভার বোল করেছিল।

সে আমাদের ওয়ানডে পরিকল্পনায় ভালো ভাবেই রয়েছে, তবে আমরা যদি তাকে পুরো সময় তিনটি ফরম্যাটেই খেলাই তবে এটি ক্ষতিকারক হতে পারে। এ প্রসঙ্গে তাসকিন ক্রিকবাজকে বলেন, ‘হ্যাঁ, নান্নু স্যার (প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদীন) সিরিজের (শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে দুটি টেস্ট) পরে আমার সাথে কথা বলেছেন।

এমন নয় যে আমি টি -২০ খেলব না। এটাই তারা চান যে আমি টেস্ট এবং ওয়ানডেতে মনোনিবেশ করি।’ ক্রিকবাজ আরো জানিয়েছে, বোর্ডের এবারেরে চুক্তিতে সর্বোচ্চ পারিশ্রমিক পেতে যাচ্ছেন মুশফিকুর রহিম। তিন ফরম্যাটের চুক্তিতেই তাকে রেখেছে বোর্ড।

এ ছাড়া মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ এবং মুস্তাফিজুর রহমান যথারীতি ওয়ানডে এবং টি-টোয়েন্টির চুক্তিতে পুর্নবহাল থাকছেন। অফ ফর্মে থাকা লিটন দাসও থাকছেন বিসিবির কেন্দ্রীয় চুক্তিতে।

Sharing is caring!

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.