সিনহা হ’ত্যাকাণ্ড: বলিরপাঠা সিফাত

সাহেদুল ইসলাম সিফাত। ছোট বেলা থেকে শখ ছিলো ফটোগ্রাফি ও অভিনয় করা। এ জন্যই আমরা তাকে স্ট্যামফোর্ড ইউনিভার্সিটিতে ফ্লিম ও মিডিয়া বিভাগে ভর্তি করে দেই। নি’হ’ত মেজর সিনহা রাশেদ খান তাঁর ইউটিউব চ্যানেলে ভিডিও ধারণ করার জন্য সিফাতকে নিয়ে যায় টেকনাফে। সেখানে একটি রিসোর্টে অবস্থান করে একমাস ধরে ডকুমেন্টরি তৈরি করছিল।

তবে ফেরার পথে গত ৩১ জুলাই রাত ৯টায় টেকনাফের বাহারছড়া ইউনিয়নের শামলাপুর পুলিশ চে’কপো’স্টে এক পুলিশ কর্মকর্তার গু’লি’তে নি’হ’ত হয় অবসরপ্রাপ্ত সেনাবাহিনীর মেজর সিনহা মো. রাশেদ খান। ‘সাবেক সেনা কর্মকর্তার সাথে একই গাড়িতে ফিরছিলো আমার নাতি সিফাত। পুলিশ তাদের দো’ষ ধামাচাপা দিতে আমার নাতিকে মিথ্যা অ’ভিযোগে গ্রে’প্তার করেন।

আমিসহ দেশবাসী বিশ্বাস করে পুলিশের নাটকের ব’লিরপা’ঠা হলো আমার নাতি সিফাত। পুলিশের বিরুদ্ধে এমন অ’ভিযোগ করেন গ্রে’প্তার হওয়া নি’হ’ত সাবেক মেজর সিনহার সাথে থাকা সাহেদুল ইসলাম সিফাতের নানা এনায়েত কবির হাওলাদার। তিনি বামনা সদর ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান। গতকাল মঙ্গলবার রাতে তার বাসবভনে স্থানীয় সাংবাদিকদের কাছে এমন অ’ভিযোগ করেন তিনি।

তিনি আরো বলেন, টেকনাফ থানা পুলিশ নিজেরা বাঁচতে তাঁর নাতিসহ আরো দুজন সহপাঠীকে এই ঘ’টনার বলিরপাঠা বা’নানো হচ্ছে। সিফাতের স্বপ্ন পুলিশের সাজানো নাটকে আজ ধং’স হতে চলেছে। সিফাত জীবনে একটি সিগারেটও খায়নি অথচ তাকে মা’দক দিয়ে ফাঁ’সানো হয়েছে। মেজর সিনহা ওকে খুব ভালোবসত। ওর মাধ্যমে সিনহা তাঁর ইউটিউব চ্যানেলটি তৈরির কাজ শুরু করে।

নি’হ’ত সাবেক মেজর সিনহা রাশেদ খানের সাথে একই গাড়িতে থাকা সাহেদুল ইসলাম সিফাতের বাড়ি বরগুনার বামনা উপজেলার কলাগাছিয়া গ্রামে। তার বাবার নাম নুর মোস্তফা মা লন্ডন প্রবাসী মোসা. শিলা খান। সিফাত এ বছর স্ট্যামফোর্ড ইউনিভার্সিটির ফ্লিম ও মিডিয়া বিভাগের তৃতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী।

এর আগে তিনি বামনা সরকারি সারওয়ারজান পাইলট উচ্চ বিদ্যালয় থেকে এসএসসি ও বামনা কলেজ থেকে এইচ এস সি পাশ করেন। সিফাতের নানা আরো বলেন, সিফাত টেকনাফে যাওয়ার সময় সিনহার তথ্য চিত্রের বিভিন্ন দিক নিয়ে আমার সাথে কথা বলেছে। ও আমায় বলে নানু আমি ফটোগ্রাফি নিয়ে কাজ পড়াশুনা করে একদিন নাম করা ফটোগ্রাফার হবো।

তোমরা দোয়া করো আমি সিনহা স্যারের সাথে টেকনাফে শুটিং করতে যাচ্ছি। ওখানে একমাস থাকবো। তোমার নাতিকে একদিন দেশ চিনবে।তিনি কষ্টের স্বরে বলেন, আজ আমার নাতিকে সত্যি দেশ চিনলো তবে পুলিশের সাজানো নাটকের আসামি হিসাবে।

আমি আমার নাতির মুক্তি চাই। আপনারা আমার নাতিকে এনে দিন। সরকার আমার নাতিকে পুলিশের হাত থেকে ফিরিয়ে দিন। আজ বুধবার বামনা সরকারি সারওয়ারজান পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ের সিফাতের সহপাঠীরা সিফাতের মুক্তির দাবীতে মানববন্ধন করতে চাইলে পুলিশের টহলে ওই মানবন্ধন করতে সফল হয়নি তারা।

বামনা থানা পুলিশ দুজন সহপাঠীকে মানববন্ধন না করার জন্য হুমকিও প্রদান করে বলে জানায় ওই সহপাঠীরা। বামনা থানার ওসি ইলিয়াস আলী তালুকদারের কাছে এ বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, সাবেক মেজর সিনহা টেকনাফে নি’হ’তে হয়েছেন। সেখানেই মামলা হয়েছে যার তদন্ত চলমান। এর বেশিকিছু আমার জানা নেই। কালেরকণ্ঠ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *