সেঞ্চুরিয়নে একই দিনে ১৮ উইকেটের পতন

সেঞ্চুরিয়ন টেস্টের দ্বিতীয় দিন বৃষ্টির পেটে গেলেও তৃতীয় দিনের খেলা ম্যাচটিকে জমিয়ে তুলেছে। এ দিন দুই দলের সর্বমোট ১৮ উইকেটের পতন হয়েছে। প্রথম ইনিংসে লুঙ্গি এনগিদি-কাগিসো রাবাদাদের তোপে ভারত অলআউট হয়েছে ৩২৭ রানে। এরপর মোহাম্মদ শামির আগুনে বোলিংয়ের সামনে ১৯৭ রানে অলআউট হয়েছে দক্ষিণ আফ্রিকা।

ভারত তাদের দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাটিং করতে নেমে এক উইকেটে ১৬ রান করেছে। সফরকারীদের লিড ১৪৬ রানের।প্রথম দিনে নিজেদের প্রথম ইনিংসে তিন উইকেটে ২৭২ তোলা ভারত, তৃতীয় দিনের শুরুতেই নুয়ে পড়ে। মাত্র ৪৯ রানে সাত উইকেট হারায় তারা। সেঞ্চুরিয়ান লোকেশ রাহুল ফেরেন ১২৩ রানে।

৪৮ রানে ফিরে যান অভিজ্ঞ ব্যাটার আজিঙ্কা রাহানে।রাবাদা-এনগিদির দ্বিমুখী আক্রমণের সামনে সহজেই নতজানু হয় ভারতের লোয়ার অর্ডার। শেষদিকে কেবল দুই অঙ্কের রান করতে পেরেছেন জসপ্রিত বুমরাহ (১৪)। তৃতীয় দিনের তিন উইকেটসহ এনগিদি এই ইনিংসে নেন মোট ছয় উইকেট। রাবাদা শিকার করেন তিন উইকেট।

দক্ষিণ আফ্রিকার ইনিংসের শুরু থেকেই আসা যাওয়ায় ব্যস্ত ছিলেন ব্যাটাররা। শামি, বুমরাহ, শার্দুল ঠাকুর ও মোহাম্মদ সিরাজের আক্রমণ পুরো ইনিংস জুড়েই অব্যাহত ছিল। প্রোটিয়াদের ইনিংসে হাফ সেঞ্চুরি ছুঁতে পেরেছেন কেবল টেম্বা বাভুমা (৫২)। এছাড়া কুইন্টন ডি কক ৩৪ ও রাবাদার ব্যাটে আসে ২৫ রান।

ভারতের হয়ে একাই পাঁচ উইকেট নেন শামি। দুটি করে উইকেট নেন বুমরাহ ও শার্দুল। একটি উইকেট নেন সিরাজ। দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাটিংয়ে নেমে আগারওয়ালের (৪) উইকেট হারিয়েছে ভারত। উইকেটে আছেন রাহুল ও নাইটওয়াচম্যান শার্দুল।

সংক্ষিপ্ত স্কোর-
ভারত (প্রথম ইনিংস)- ৩২৭/১০ (১০৫.৩ ওভার)
(রাহুল ১২৩, আগারওয়াল ৬০, রাহানে ৪৮; এনগিদি ৬/৭১)

দক্ষিণ আফ্রিকা (প্রথম ইনিংস)- ১৯৭/১০ (৬২.৩ ওভার)
(বাভুমা ৫২, কক ৩৪; শামি ৫/৪৪, বুমরাহ ২/১৬)

ভারত (দ্বিতীয় ইনিংস)- ১৬/১ (৬ ওভার)
(রাহুল ৫*, শার্দুল ৪*; ইয়ানসেন ১/৪)

Sharing is caring!

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.