সেনা মোতায়েন বাড়িয়েছে ভারত!

ভারত সরকার কাশ্মীরের প্রধান শহর শ্রীনগরে নিরাপত্তা ব্যবস্থা আরও কঠোর করেছে। এরই মধ্যে সেনা মোতায়েন বাড়ানো হয়েছে। বৃহস্পতিবার অঞ্চলটির আলোচিত নেতা সৈয়দ আলী শাহ গিলানির দাফন সম্পন্ন হয়। এরপরই আজ শুক্রবার জুমার নামাজ উপলক্ষে বিভিন্ন স্থানে সেনা মোতায়েন বাড়িয়েছে কর্তৃপক্ষ। খবর রয়টার্স এর।

এর আগে, বুধবার রাত ১০টা ৩৫ মিনিট নাগাদ শ্রীনগরের হায়দরপুরায় সৈয়দ আলী শাহ গিলানি নিজের বাসভবনে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। তার মৃ’ত্যুর পর উপত্যকায় কোনো রকমের অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে কাশ্মীর জুড়ে নিরাপত্তা জো’রদার করা হয়েছে। ইন্টারনেট সেবাও সাময়িক বন্ধ রাখা হয়েছে। হায়দরপুরায় গিলানির বাড়ির বাইরেও নিরাপত্তা ব্যবস্থা বাড়ানো হয়েছে।

আরো পড়ুন: চিরনিদ্রায় শায়িত হলেন এমপি স্বপন:বাবা-মায়ের কবরের পাশে চিরনিদ্রায় শায়িত হলেন সিরাজগঞ্জ-৬ (শাহজাদপুর) আসনের সংসদ সদস্য হাসিবুর রহমান স্বপন। শুক্রবার বিকেল ৩টায় শাহজাদপুর সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে দ্বিতীয় এবং সাড়ে ৩টায় শাহজাদপুর মখদুমিয়া জামে মসজিদে তৃতীয় নামাজে জানাজা শেষে চুনিয়াখালি ক’বরস্থানে তার দা’ফন সম্পন্ন হয়।

এর আগে শুক্রবার ভোরে তুরস্ক থেকে হাসিবুর রহমান স্বপনের ম’রদে’হ ঢাকায় এসে পৌঁছায়। সকাল সাড়ে ৮টায় ঢাকার গুলশান আজাদ মসজিদে প্রথম নামাজে জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। জানাজা শেষে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও স্পিকার শিরিন শারমীন চৌধুরীর পক্ষ থেকে ফুল দিয়ে শেষ শ্রদ্ধা নিবেদন করা হয়। এরপর সকাল সাড়ে ১১টার দিকে হেলিকপ্টারে করে তার মরদেহ পাবনার বেড়া আব্দুল খালেক স্টেডিয়ামে আনা হয়।

সেখান থেকে অ্যাম্বুলেন্সে করে তার মরদেহ শাহজাদপুর দ্বারিয়াপুর মহল্লার নিজ বাড়ির সামনে স্বজনদের দেখানোর জন্য রাখা হয়। দুপুর ২টার দিকে শাহজাদপুর উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে সর্ব সাধারণের শ্রদ্ধা নিবেদনের জন্য তার মরদেহ নেওয়া হয়। সেখানে শ্রদ্ধা নিবেদন শেষে সেখানে জেলা প্রশাসক ড. ফারুক আহাম্মদ, পুলিশ সুপার হাসিবুল আলম, জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান, সাবেক মন্ত্রী আব্দুল লতিফ বিশ্বাস, জেলা আওয়ামী লীগ,

যুবলীগসহ বিভিন্ন অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের পক্ষ থেকে ফুলেল শ্রদ্ধা নিবেদন করা হয়। জেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি অ্যাডভোকেট কে এম হোসেন আলী হাসান, সাবেক সংসদ সদস্য চয়ন ইসলাম, প্রয়াত হাসিবুর রহমান স্বপনের বড় মেয়ে শম্পা রহমান বক্তব্য রাখেন।

জানাজা শেষে তার ম’রদে’হ চুনিয়াখালি শাহ মখদুমিয়া মসজিদে নেওয়া হলে সেখানে তৃতীয় নামাজে জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। এরপর শাহ মখদুমিয়া কবরস্থানে বাবা-মার ক’বরের পাশে তাকে দা’ফন করা হয়। করো’না ভাই’রাসে আ’ক্রা’ন্ত হয়ে তুরস্কের একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় বাংলাদেশ সময় বৃহস্পতিবার রাত সোয়া তিনটার দিকে মা’রা যান হাসিবুর রহমান স্বপন।

Sharing is caring!

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.