সেমিফাইনালে ভারতের মুখোমুখি বাংলাদেশ

অনূর্ধ্ব-১৯ এশিয়া কাপের সেমিফাইনালে ভারতের মুখোমুখি বাংলাদেশের যুবারা। নেট রানরেটে এগিয়ে থাকায় পাঁচ পয়েন্ট নিয়ে গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হয়ে সেমিফাইনালে উঠেছে বাংলাদেশ। এছাড়া গ্রুপ ‘বি’ থেকে বাংলাদেশের সমান পয়েন্ট নিয়ে শেষ চারে জায়গা করে নিয়েছে শ্রীলঙ্কাও।

অন্যদিকে, গ্রুপ ‘এ’ তে শীর্ষে থেকে সেমিফাইনালে উঠেছে পাকিস্তান। তিন ম্যাচের সবকটি জিতে তাদের পয়েন্ট ছয়। তারা মুখোমুখি হবে শ্রীলঙ্কার। এছাড়া দ্বিতীয় অবস্থানে থেকে সেমিফাইনাল নিশ্চিত করেছে ভারত। জানা গেছে, আগামী ৩০ ডিসেম্বর ভারতের বিপক্ষে শেষ চারে মাঠে নামবে রাকিবুল বাহিনী।

সবশেষ অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপে এই ভারতকে হারিয়েই প্রথমবারের মতো বিশ্বচ্যাম্পিয়ন হওয়ার গৌরব অর্জন করেছিল বাংলাদেশ। এছাড়া চলতি এশিয়া কাপ শুরুর আগেও ভারতের মাটিতে গিয়ে তাদের বিপক্ষে সিরিজ জিতে এসেছে রাকিবুলরা। আর তাই আরেকবার ভারতের বিপক্ষে নামার আগে এ দুটি বড় জয় অনুপ্রেরণা হয়ে থাকবে বাংলাদেশের যুবাদের সামনে।

মঙ্গলবার (২৮ ডিসেম্বর) শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে বাংলাদেশের ম্যাচটি বাতিল হয়ে গেছে। জানা গেছে, ম্যাচ চলাকালীন অবস্থায় একজন আম্পায়ারের করোনা পজিটিভ রিপোর্ট আসায় খেলাটি বাতিল করা হয়েছে। ভারতের মাটিতে সিরিজ জয়ের পর অনূর্ধ্ব-১৯ এশিয়া কাপে যেন উড়ছে বাংলার যুবারা। প্রথম ম্যাচে নেপালকে বড় ব্যবধানে হারানোর পর দ্বিতীয় ম্যাচে শনিবার (২৫ ডিসেম্বর) কুয়েতকেও উড়িয়ে দেয় রাকিবুল বাহিনী।

টুর্নামেন্টের প্রথম ম্যাচে নেপালের বিপক্ষে বাংলাদেশের হয়ে সেঞ্চুরি করেছিলেন যুবা টাইগার প্রান্তিক নওরোজ নাবিল। ১১২ বলে ১২৭ রান আসে তার ব্যাট থেকে। নাবিলের ইনিংসে ছিল ১১টি চার ও একটি ছয়ের মার। সে ম্যাচে নেপাল হেরেছিল ১৫৪ রানের বড় ব্যবধানে। নির্ধারিত ৫০ ওভারে ৪ উইকেট হারিয়ে ২৯৭ রান সংগ্রহ করে রাকিবুল হাসানরা। জবাবে ১৪৩ রানেই গুটিয়ে যায় নেপালের ইনিংস।

এরপর দ্বিতীয় ম্যাচে মাহফিজুল ইসলামের সেঞ্চুরিতে কুয়েতের বিপক্ষে পাহাড়সম সংগ্রহ দাঁড় করায় বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-১৯ দল। ১০ উইকেট হারিয়ে ২৯১ রান করে রাকিবুল হাসান বাহিনী। তরুণতুর্কি মাহফিজুল একাই করেন ১১২ রান। এমন অনবদ্য ব্যাটিং করার পথে ১২টি চার ও ৪টি ছক্কা হাঁকায় সে।

পাহাড়সম লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে কুয়েতের শুরুটা মোটেও ভালো হয়নি। স্কোরবোর্ডে মাত্র ৫ রান তুলতেই উদ্বোধনী জুটি ভাঙে তাদের। এরপর একে একে উইকেট হারাতে থাকে কুয়েত। দলটিকে ২২২ রানে হারিয়েছে বাংলার যুবারা।কুয়েতের পক্ষে দলটির অধিনায়ক মিত ভভসার যা একটু প্রতিরোধ গড়ে তোলার চেষ্টা করেন। তিনি ৪৩ রানের লড়াকু ইনিংস খেলেন। তবে আর কেউ ব্যাট হাতে তেমন কিছু করতে পারেনি।

Sharing is caring!

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.