হাত-পা নেই, তবুও ক্রিকেট খেলছে ওরা

কারো হাত নেই, কারো নেই পা। কেউ খুঁড়িয়ে হাঁটেন, কারো বা এক চোখ অন্ধ। একদল প্রতিবন্ধী যুবক। তারা পুরো সপ্তাহ কাজ করেন, সপ্তাহে একটা দিন মিলিত হন। ব্যাট-বল হাতে নেমে পড়েন টাউন হল মাঠে।

ওদের খেলা দেখতে শত শত মানুষ ভিড় করেন। বাউন্ডারির চারদিকে ‘গ্যালারি’ বানিয়ে খেলা উপভোগ করেন ক্রিকেটপ্রেমীরা। এক একটি চার-ছক্কা কিংবা উইকেট; মুহুর্মুহু করতালিতে কেঁপে ওঠে মাঠ।

সপ্তাহের ছুটির দিনটায় ২০-২৫ জন প্রতিবন্ধী যুবক জড়ো হন মাঠে। তাদের একেকজন এক এক পেশার। তাদের মধ্যে কেউ ব্যাটারিচালিত অটোরিকশা চালক। কেউবা দিনমজুরের কাজ করেন। যারা একেবারেই অক্ষম, তারা ভিক্ষা করেন। তাদের মধ্যে কেউ জন্মপ্রতিবন্ধী, কেউবা দুর্ঘটনায়।

জুম্মনের বয়স ১৯ বছর। পেশায় অটোচালক। বাড়ি কুমিল্লার দেবিদ্বার উপজেলার ধামতী গ্রামে। চার ভাই, ছয় বোনের মধ্যে জুম্মন সপ্তম। জুম্মনসহ তাদের পরিবারের চারজন প্রতিবন্ধী।জুম্মন জানান, প্রতি শুক্রবারে টাউন হল মাঠে প্রতিবন্ধীরা খেলতে আসে। এভাবে সারা বছর তারা খেলেন। আর বছরের শেষে একটি টুর্নামেন্ট হয়। দারুণ জমে সেই টুর্নামেন্ট।

প্রায় পাঁচ বছর আগে সড়ক পারাপার হতে গিয়ে বাসচাপায় একটি পা হারান সোহাগ মিয়া। ছিলেন হকার। সড়ক দুর্ঘটনায় পা হারানোর পর ভিক্ষে করে সংসার চলে। তার একটি মেয়ে আছে। বাড়ি কুমিল্লা আদর্শ সদর উপজেলার বাগবের গ্রামে। দুই ভাই, এক বোনের মধ্যে সোহাগ বড়।

শুক্রবার এলেই টাউনহল মাঠে আসেন সোহাগ। স্ক্র্যাচে ভর দিয়ে এক পায়ে ক্রিকেট খেলেন। সোহাগ আবার ব্যাটে-বলে সমান পারদর্শী, অলরাউন্ডার। সোহাগ জানান, তারা মাঝে কিছুদিন খেলা বন্ধ রেখেছিলেন। তবে ইদানীং আবার টাউন হল মাঠ ক্রিকেট নিয়ে সরব হচ্ছে। আগের মতোই হাসি-আনন্দে খেলায় মাতছেন তারা।

বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) সাবেক ম্যানেজার বদরুল হুদা জেনু বলেন, ‘প্রতিবন্ধী যুবকদের ক্রিকেট খেলার যে অদম্য ইচ্ছে, এটা সমাজের জন্য ইতিবাচক। তাদের নিয়ে বড় পরিসরে ক্রিকেট আয়োজন করা গেলে ভালো লাগতো।’

প্রতিবন্ধী এসব যুবকদের পৃষ্ঠপোষকতা করে কুমিল্লা আদর্শ সদর প্রতিবন্ধী উন্নয়ন পরিষদ। এই সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক রায়হান রহমান হেলেন বলেন, ‘গত সাড়ে ৩ বছর ধরে প্রতিবন্ধী ছেলেরা ক্রিকেট খেলছে। তাদের জন্য সংগঠনের সদস্যরা বছরান্তে কিছু অনুদান দেয়, তা দিয়েই তাদের খেলাধুলার সরঞ্জাম ক্রয় করা হয়।’

তিনি জানান, প্রতি বছর এই প্রতিবন্ধীদের জন্য একটি ক্রিকেট টুর্নামেন্টের আয়োজন করা হয়। টুর্নামেন্টে দারুণ প্রতিদ্বন্দ্বিতা হয়। এ বছর কোরবানির ঈদের আগে একটি টুর্নামেন্টের আয়োজন করার পরিকল্পনা রয়েছে।

Sharing is caring!

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.