হুমকিতে টাইগারদের লঙ্কা সফর

টাইগার ভক্ত-সমর্থকরা উন্মুখ অপেক্ষায়। তাদের কৌতূহলি জিজ্ঞাসা, কবে হবে দল ঘোষণা? কোন দিন টাইগাররা যাবে শ্রীলঙ্কা? কিন্তু তারা কি জানেন, ভেতরে অন্য খবরও আছে। জাতীয় দল ও হাই পারফরমেন্স ইউনিটের শ্রীলঙ্কা সফর হবেই- এমন নিশ্চয়তা যে নেই, তা জানেন কজনা?

জাতীয় দল ও এইচপি বহরের শ্রীলঙ্কা সফর এখনও শতভাগ পুরোপুরি নিশ্চিত নয়। বিসিবি ও লঙ্কান বোর্ডের মধ্যে কথা চলছে প্রতিনিয়তই। কিন্তু একটি জায়গায় এসে কথা মিলছে না। লঙ্কান বোর্ড বলছে, টাইগারদের শ্রীলঙ্কা গিয়ে পুরো ১৪ দিন কোয়ারেন্টাইনে থাকতে হবে।

আর বিসিবির ইচ্ছে অত দিন কোয়ারেনটাইনে থাকা যাবে না, সর্বোচ্চ ৭ দিন থাকা যেতে পারে। এখন এই ৭ ও ১৪’র মধ্যে আটকে আছে কথাবার্তা। লঙ্কান বোর্ডের চেয়ে বেশি তৎপর তাদের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়। তারা নাছোড়বান্দা, কিছুতেই ১৪ দিনের কম কোয়ারেন্টাইনে থাকা চলবে না। অন্যদিকে বিসিবি অত দিন কোয়ারেন্টাইনে থাকতে রাজি নয়।

বিসিবির কথা, দুই সপ্তাহ কোয়ারেন্টাইনে কাটানো মানে সফরে গিয়ে ঘরে বসে থাকার মত অবস্থা। সেটা কিছুতেই মেনে নেয়া যায় না। লঙ্কান স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ও এ বিষয়ে ছাড় দিতে রাজি নয়। যার ফলে এখন ঝুলে গেছে টাইগারদের শ্রীলঙ্কা সফর। আদৌ সফরটি হবে কি না, এমন সংশয়ও সৃষ্টি হয়েছে। সরাসরি ঠিক এ কথা না বললেও, বিসিবি সিইও নিজামউদ্দীন চৌধুরী সুজন মিডিয়ার সঙ্গে আলাপে এ কথা স্বীকার করেছেন।

এখন অবস্থা পর্যবেক্ষণ করছে বিসিবি। আজ রবিবার দুপুরে বোর্ডে এক অনানুষ্ঠানিক বৈঠক হয়েছে। বিসিবি পরিচালক আকরাম খান, নাইমুর রহমান দুর্জয় ও প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদিন নান্নু ছিলেন সেখানে। সেখানে তারা শ্রীলঙ্কা সফর এবং জাতীয় দল ও এইচপি ইউনিট ঘোষণা নিয়ে কথা বলেন।

অঘোষিত এই বৈঠক শেষে এইচপি প্রধান নাইমুর রহমান দুর্জয় জানান, তারা (বিসিবি) এখন লঙ্কান বোর্ডের দিকে তাকিয়ে। লঙ্কান বোর্ড তাদের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের সঙ্গে কথা বলে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত জানাবে। কী সেই সিদ্ধান্ত? নাইমুরের ব্যাখ্যা, আমরা ৭ দিন কোয়ারেন্টাইনে থাকার কথা বলে দিয়েছি।

আর লঙ্কান স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় চচ্ছে ১৪ দিন রাখতে। এইচপি চেয়ারম্যানের কথায় পরিষ্কার, যেহেতু স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের ব্যাপার, তাই এটাকে পাশ কাটিয়ে কিছু করার উপায় নেই লঙ্কান বোর্ডের। লঙ্কান স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় করোনাকালীন সময়ে বাংলাদেশ জাতীয় দল, এইচপি বহর আর কোচিং ও সাপোর্টিং স্টাফ মিলে প্রায় ৬০ জনকে ৭ দিনের কোয়ারেন্টাইনে থাকার অনুমতি দিলেই কেবল সমস্যা মিটবে।

কিন্তু তারা তা দেবে কি না? সেটাই প্রশ্ন। কঠিন সত্য হলো, শেষপর্যন্ত ঐ জট না খুললে শ্রীলঙ্কা সফর পুরোটাই অনিশ্চিত হয়ে যেতে পারে। এদিকের খবর হলো, জাতীয় দল আর এইচপি ইউনিট তৈরি। শুধু ঘোষণাটাই বাকি। দল ঘোষণায় বাঁধা হয়ে আছে কোয়ারেন্টাইন ইস্যু।

লঙ্কানদের কাছ থেকে এই ইস্যুতে কোন যুক্তিযুক্ত সমাধান না পাওয়া পর্যন্ত দল ঘোষণার কোনো সম্ভাবনা নেই। নাইমুর রহমান দুর্জয় নিশ্চিত করেছেন, লঙ্কান বোর্ডের কাছ থেকে ইতিবাচক খবর না আসা পর্যন্ত জাতীয় দল আর এইচপি স্কোয়াড ঘোষণা হবে না।

আমরা অপেক্ষায় আছি। শ্রীলঙ্কা থেকে ইতিবাচক খবর আসলে তারপর দল ঘোষণা। এখন প্রশ্ন হলো সে খবর আসবে কবে? নাইমুরের আশা, আগামী দুই-তিন দিনের মধ্যে লঙ্কান বোর্ড তাদের সর্বশেষ সিদ্ধান্ত জানাবে। ধরেই নেয়া যায়, সে পর্যন্ত দল ঘোষণা হবে না।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *