১০৭ আরোহী নিয়ে বিমান বিধ্বস্ত

পাকিস্তানের করাচিতে একটি যাত্রীবাহী বিমান বিধ্বস্তের ঘটনা ঘটেছে। পাকিস্তান ইন্টারন্যাশনাল এয়ারলাইন্সের ৮৩০৩ নম্বরের এ বিমানটিতে ৯৯ জন যাত্রী এবং ৮ জন স্ক্রু ছিলেন। শুক্রবার (২২ মে) দেশটির করাচি শহরে এক আবাসন এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে।

ওই আবাসন এলাকার অন্তত চারটি বাড়িও বিধ্বস্ত হয়েছে বলে। যাত্রীবাহী ওই বিমানটি লাহোর থেকে ছেড়ে আসে বলে জানা গেছে। এখনো হতাহতের কোনো খবর নিশ্চিত করা সম্ভব হয়নি। তবে জানা গেছে ঘটনাস্থলে পাকিস্তান সেনাবাহিনীর উদ্ধারকারী হেলিকপ্টার পৌঁছেছে। সেই সঙ্গে যাত্রীদের পূর্ণাঙ্গ বিবরণ জানার চেষ্টা চলছে।

আরো পড়ুন:- সড়কে চেকপোস্ট নেই, বিনা বাধায় রাজধানী ছাড়ছে মানুষ: করোনা ভাইরাসের জন্য ব্যক্তিগত গাড়ি চলাচলের অনুমতি দেয়ায় সকাল থেকে কোন প্রকার বাধা ছাড়াই ঢাকা ছাড়ছে মানুষ। চেকপোস্ট থাকলেও ছিলো না কোন পুলিশ। এমন শিথিলতার কারণে ভাড়া করা গাড়ি নিয়ে ঈদ করতে বাড়ির পানে ছুটছে মানুষ। সেই সঙ্গে বাড়ছে করোনা সংক্রমণের ঝুঁকি।

ব্যক্তিগত গাড়ি চলাচল শিথিল করার পর, তুলে নেয়া হয় রাজধানীর প্রবেশ ও বাহির মুখের পুলিশের চেক পোস্ট। এতে সড়কে বেড়ে গেছে ব্যক্তিগত গাড়ির সংখ্যা। ঈদের ছুটিতে মানুষ যাত্রা করেছে গ্রামের বাড়ির উদ্দেশ্যে। এই সুযোগে ব্যক্তিগত গাড়িতে অনেকেই গাদাগাদি করে যাত্রী তুলে ভাড়ায় যাচ্ছেন দূরের পথ।

শুক্রবার সকাল থেকে গাবতলী বাস টার্মিনাল এলাকায় ভিড় দেখা যায় ভাড়া করা প্রাইভেট গাড়ির। তবে কোথাও কোথাও ঢিলেঢালাভাবে টহল দিতে দেখা গেছে পুলিশকে। তারা বলছেন, নিয়মিত টহলের অংশ হিসেবে কাজ করছেন তারা। গাড়ি না পেয়ে সিএনজি কিংবা অন্য কোন উপায়েও রাজধানী ছাড়ছেন মানুষ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *