১৪ দল নিয়ে ওয়ানডে বিশ্বকাপ

সময়ের পরিক্রমায় ক্রমশই আইসিসির টুর্নামেন্টগুলোতে অংশগ্রহণকারী দলের সংখ্যা কমানো হচ্ছিলো। তবে সেই ভাবনা থেকে সরে এসে ক্রিকেটের সর্বোচ্চ নিয়ন্ত্রক সংস্থাটি। ক্রিকেটকে আরও জনপ্রিয় করে তুলতে সীমিত ওভারের দুটি বিশ্বকাপে দলের সংখ্যা বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে আইসিসি।

মঙ্গলবার (১ জুন) মাসিক সভা শেষে এক বিবৃতিতে বিষয়টি নিশ্চিত করেছে ক্রিকেটের সর্বোচ্চ নিয়ন্ত্রক সংস্থাটি। যেখানে বলা হয়েছে, ২০২৭ ও ২০৩১ সালের ওয়ানডে বিশ্বকাপ মাঠে গড়াবে ১৪টি করে দল নিয়ে।সময় যত গড়িয়েছে ওয়ানডে বিশ্বকাপে দলের সংখ্যা ততই কমেছে।

২০০৭ সালের বিশ্বকাপে ১৬টি দল অংশগ্রহণ করলেও ২০১১ ও ২০১৫ বিশ্বকাপে অংশগ্রহণ করেছিল ১৪টি করে দল। তবে সেটার সংখ্যা আরও কমেছে ২০১৯ ইংল্যান্ড বিশ্বকাপে এসে।যেখানে ১৪ দলের পরিবর্তে বিশ্বকাপ অনুষ্ঠিত হয় মাত্র ১০টি দল নিয়ে। মূলত ‘বিগ থ্রি’ গঠিত হওয়ায় বিশ্বকাপে দল সংখ্যা ক্রমান্বয়ে কমানো হয়েছিল। যুক্তি হিসেবে সেই সময় বলা হয়েছিল ব্রডকাস্টাররা একতরফা ম্যাচ কম চায়।

২০২৭ ও ২০৩১ সালের ওয়ানডে বিশ্বকাপ মাঠে গড়াবে ২০০৩ বিশ্বকাপের নিয়ম অনুযায়ী। যেখানে দুটি গ্রুপে ভাগ হয়ে খেলবে দলগুলো। প্রতিটি গ্রুপে থাকবে সাতটি করে দল। প্রতিটি গ্রুপের সেরা তিন দল সুযোগ পাবে সুপার সিক্সে। সেখান থেকে সেরা চার দল খেলবে সেমিফাইনাল। আর সেমিফাইনালে জয় পাওয়া দুই দল খেলবে ফাইনালে।

এদিকে ভবিষ্যত সূচিতে ৫০ ওভারের চ্যাম্পিয়নস ট্রফি ফিরিয়েছে আইসিসি। যার প্রথম আসর অনুষ্ঠিত হবে আগামী ২০২৫ সালে। দ্বিতীয় আসর ২০২৯ সালে। যেখানে আইসিসির ওয়ানডে র‌্যাঙ্কিংয়ের শীর্ষ আট দল খেলার সুযোগ পাবে। দুটি গ্রুপে ভাগ হয়ে অংশগ্রহণ করবে দলগুলো। যেখানে প্রতিটি গ্রুপে থাকবে চারটি করে দল।

প্রতি গ্রুপের সেরা দুই দল সুযোগ পাবে সেমিফাইনালে। আর সেমিফাইনালে জয় পাওয়া দলটি দুটি খেলবে আইসিসি চ্যাম্পিয়নস ট্রফির ফাইনালে। এদিকে বহাল থাকছে আইসিসির টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপ। প্রতি দুই বছর অন্তর হবে ফাইনাল। যেখানে আইসিসির টেস্ট র‌্যাঙ্কিংয়ের শীর্ষ নয়ে থাকা দলগুলো ৬টি করে সিরিজ খেলার সুযোগ পাবে।

Sharing is caring!

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.