২০২১ সালেও না হলে বাতিল জাপান অলিম্পিক

২০২১ সালেও আয়োজন করতে না পারলে বাতিল হয়ে যাবে অলিম্পিকের এবারের আসর। জানিয়েছেন আন্তর্জাতিক অলিম্পিক কমিটির প্রেসিডেন্ট থমাস বাখ। ঘোষণার পরপরই জাপানের চীফ কেবিনেট সেক্রেটারি জানিয়েছেন, আগামী বছরে টোকিও অলিম্পিক আয়োজনের জন্য আয়োজক কমিটিকে সর্বোচ্চ সহযোগিতা দেবে সরকার।

এদিকে, ওষুধ বা ভ্যাকসিন আবিস্কার না হলেও আগামী বছরেই গ্রীষ্মকালীন অলিম্পিক ও প্যারাঅলিম্পিক্স আয়োজনের দাবী জানিয়েছেন হংকংয়ের পদকজয়ী প্যারাঅলিম্পিয়ান শাটলার।

ফুটবলের অর্থের ঝনঝনানি নেই। নেই ক্রিকেটের এলিটিপনা। তারপরও মর্যাদার বিচারে যোজন যোজন এগিয়ে। বলছি দ্য গ্রেটেস্ট শো অন আর্থ; অলিম্পিক্সের কথা। শেকড়তো যীশুখৃষ্টের জন্মেরও ৮শ বছর আগের; তবে আধুনিক অলিম্পিক গেমসের শুরু ১৮৯৬ এ। এরপর প্রথম বিশ্বযুদ্ধকালীন ১৯১৬ আসর আর দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সময় ১৯৪০ আর ৪৪’র মিলিয়ে মোট তিনবার বাতিল হয় গ্রীষ্মকালীন অলিম্পিক।

তবে সংখ্যাটা এবার বাড়তে পারে। এমন বার্তা জানিয়ে দিলেন আন্তর্জাতিক অলিম্পিক কমিটির প্রেসিডেন্ট থমাস বাখ। করোনা মহামারীর কারণে আগেই পিছিয়ে গেছে ২০২০ টোকিও অলিম্পিক।

২০২১ সালের ২৩ জুলাই ধরে রাখা হয়েছে পরবর্তী উদ্বোধনের তারিখ। তবে তখোনি কি হবে/ যদি ততদিনেও সেরে না ওঠে পৃথিবী? জানিয়ে দিলেন অলিম্পিকের সর্বোচ্চ এই কর্মকর্তা।

থমাস বাখ বলেন, এটা বিশাল এক আয়োজন। হাজার হাজার মানুষ এই আয়োজনের সঙ্গে জড়িত। এতোবড়ো আয়োজন মুখের কথা নয়। আমরা আশা করছি আমাদের পরিকল্পনাগুলো ধরে এগুতে পারবো। তবে পরিস্থিতি কবে ঠিক হবে এটা বলা মুশকিল। ২০২১ সালে আয়োজন করা সম্ভব না হলে বাস্তবতা মেনে সিদ্ধান্ত নিতে হবে। আর পেছানোর সুযোগ নেই।

বিশ্বসেরা এই ক্রীড়া ইভেন্ট আয়োজনে অনেক পরিশ্রম করেছে আয়োজক জাপান। পানির মতো খরচ করেছে অর্থ আর ঘাম। আসর বাতিল হলে তাই বড় ধরনের হুমকির মুখেই পড়বে জাপান সরকার। এমন ঘোষণার পরপরই নিজেদের ভাবনা পরিস্কার জানিয়ে দিলেন সূর্যোদয়ের দেশটির চীফ কেবিনেট সেক্রেটারি।

ইয়োশিহাইড সুগা বলেন, আমরা আইওসির সিদ্ধান্তের ব্যাপারে জানতে পেরেছি। আগামী বছর আয়োজন করতে জাপান সরকার সর্বোচ্চ চেষ্টা করছে। আয়োজক কমিটি ও আইওসি’র যে সহযোগিতা প্রয়োজন, আমরা সাধ্যমতো সর্বোচ্চ চেষ্টা করবো। আয়োজক দেশ হিসেবে এটাই আমাদের দায়িত্ব।

এদিকে, ওষুধ বা ভ্যাকসিন আবিস্কার না হলেও আগামী বছরেই গ্রীষ্মকালীন অলিম্পিক ও প্যারাঅলিম্পিক্স আয়োজনের দাবী জানিয়েছেন হংকংয়ের পদকজয়ী প্যারাঅলিম্পিয়ান শাটলার।

ড্যানিয়েল চ্যান বলেন, জার্মানি বা দক্ষিণ কোরিয়ার দিকে দেখুন। তারা ফুটবল লিগ শুরু করে দিয়েছে। আমি মনে করি আগামী বছরের আগে পর্যাপ্ত সময় পাবে জাপান। বিশ্বাস করি এই সময়ের মধ্যে তারা অ্যাথলিটদের স্বাস্থ্য সুরক্ষায় সর্বোচ্চ প্রস্তুতি নিতে সক্ষম।

তাই ওষুধ বা ভ্যাকসিন আবিস্কার না হলেও ২১ সালেই আয়োজন করা উচিত। কেননা এটা কেবল খেলা নয়। এটা গোটা বিশ্বের ঐতিহ্য।পুণঃনির্ধারিত সময়ে আয়োজন করা হলেও দর্শক প্রবেশের অনুমতি থাকবে কিনা তা এখনও বিবেচনাধীন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *