৪ মাস আগেই দুঃসংবাদ পেয়ে গেলেন সাকিব-মুস্তাফিজ

করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের কারণে মাঝপথে স্থগিত করে রাখা হয়েছে ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগ (আইপিএল) ক্রিকেটের ১৪তম আসর। টুর্নামেন্টের বাকি থাকা ৩১ ম্যাচ আয়োজনের জন্য এরই মধ্যে আরব আমিরাতকে ভেন্যু হিসেবে চূড়ান্ত করেছে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড (বিসিসিআই)।

আগামী সেপ্টেম্বর-অক্টোবরে আইপিএলের বাকি অংশ আয়োজনে আশাবাদী তারা।নতুন সূচিতে আইপিএলের বাকি অংশ মাঠে গড়ালেও, তাতে খেলা হবে না বাংলাদেশ দলের দুই ক্রিকেটার সাকিব আল হাসান ও মোস্তফিজুর রহমানের। স্থানীয় এক টেলিভিশন চ্যানেলের বরাত দিয়ে এ খবর জানিয়েছে জনপ্রিয় ক্রিকেটভিত্তিক ওয়েবসাইট ক্রিকবাজ।

জাতীয় দলের ব্যস্ত সূচির কারণে কলকাতা নাইট রাইডার্সের হয়ে সাকিব আল হাসান ও রাজস্থান রয়্যালসের হয়ে মোস্তাফিজুর রহমানকে আইপিএলের পরের অংশে খেলার অনুমতি দেয়া হবে না বলে জানিয়েছেন বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন। বিশ্বকাপ প্রস্তুতির জন্য জাতীয় দলের সিরিজগুলোতে গুরুত্ব দেয়ার কথা বলেছেন পাপন।

তিনি বলেছেন, ‘আমাদের আন্তর্জাতিক সূচির কথা মাথায় রেখে আইপিএলের জন্য অনাপত্তিপত্র দেয়া প্রায় অসম্ভব। আমি কোনো সম্ভাবনাই দেখছি না ওদেরকে অনাপত্তিপত্র দেয়ার। আমাদের সামনে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ রয়েছে এবং এজন্য প্রতিটি ম্যাচই গুরুত্বপূর্ণ।

২৯টি ম্যাচ মাঠে গড়ানোর পর গত ৪ মে স্থগিত করা হয়েছে আইপিএল। পরে ৬ মে বিশেষ ফ্লাইটে একসঙ্গে দেশে ফিরেছেন সাকিব আল হাসান ও মোস্তাফিজুর রহমান। দুজনই খেলেছেন ঘরের মাঠে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজে।

সামনে অস্ট্রেলিয়া ও ইংল্যান্ডের বিপক্ষে রয়েছে হোম সিরিজ। মূলত এ কারণেই সাকিব-মোস্তাফিজকে আইপিএল খেলার অনাপত্তিপত্র দেয়ার পক্ষে নয় বিসিবি। শুধু আইপিএল নয়, ক্যারিবিয়ান প্রিমিয়ার লিগের অনাপত্তিপত্রও পাবেন না সাকিব। এমনটা আগেই জানিয়েছেন বিসিবির ক্রিকেট অপারেশনস কমিটির চেয়ারম্যান আকরাম খান।

Sharing is caring!

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.